শুক্রবার   ১৪ মে ২০২১   বৈশাখ ৩১ ১৪২৮   ০২ শাওয়াল ১৪৪২

শিলং ভ্রমণ গাইড বিস্তারিত খরচ ও অন্যান্য তথ্য

প্রকাশিত: ৮ আগস্ট ২০১৯  

ছবি সংগ্রহিত

ছবি সংগ্রহিত

ভারতের মেঘালয়ের শিলং, চেরাপুঞ্জি, ডাউকি ঘুরতে যেতে চাচ্ছেন আপনি, তাইনা? আমি এই মে মাসে ঘুরে এলাম মেঘালয় থেকে। আমি এই ব্লগে আপনাদের আমার ভ্রমন অভিজ্ঞতা থেকে বিস্তারিত জানাতে চেষ্টা করব। তবে এটা কোন ভ্রমন কাহিনী নয়, বরং গাইড বলতে পারেন। কারণ আমি ঘুরতে যাওয়ার আগে অনেক কাহিনী পড়েছি কিন্তু দেখছি যে সেসব কাহিনী থেকে প্রয়োজনীয় তথ্য বের করা একটু কষ্টকর ও সময়সাপেক্ষ। তাই ভাবলাম কাহিনীর বদলে গাইডধর্মী একটা লেখা লিখি। এর মাঝে থাকবে সকল তথ্য যেমন, কি কি লাগবে, খরচ কেমন, কিভাবে যেতে হবে, থাকবেন কোথায়, খাবেন কি, শপিং ইত্যাদিসহ আরো আনুষঙ্গিক বিষয়। আমি এখানে শিলং কি, এর আয়তন, লোকজন ইত্যাদি বিষয় নিয়ে আলোচনা করে সময় নষ্ট করব না। কারণ এগুলো তো আপনি উইকি থেকেই জেনে পারবেন। তাহলে চলুন জেনে নিই বিস্তারিত।

বিদেশে ঘুরতে যাওয়ার শখ আমাদের সবার থাকে, তাইনা? কম খরচে বিদেশ ভ্রমণের জন্য আমাদের জন্য সবচেয়ে উপযোগী হচ্ছে ভারত ভ্রমণ। সব ট্যুর করার জন্য সবচেয়ে জরুরি হচ্ছে ইচ্ছে আর সময়। আর আপনি যেহেতু এই গাইডটি পড়ছেন তাহলে আমি ধরে নিচ্ছি আপনার ইচ্ছে আর সময় দুটোই আছে।  আর খরচ অনেকটা হাতের মুঠোয়ই বলা যায়। মেঘালয় রাজ্য হচ্ছে আমাদের সীমান্তবর্তী রাজ্য তাই এতে যাতায়াত খরচ ভারতের অন্যান্য রাজ্যে যাওয়ার চেয়ে কম।

মাত্র ১০-১২ হাজার টাকায় ভালভাবে ঘুরে আসতে পারবেন মেঘালয়।


 
মেঘালয় ভ্রমণ গাইডে আমি দুটি ভাগে সব বিষয় আলোচনা করব। একটা হচ্ছে পার্ট-১ (পূর্বপ্রস্তুতি) যা দেশে থেকেই করতে হবে। যেমন পাসপোর্ট, ভিসা, টাকা/ডলার, ভ্রমণসঙ্গী, পোষাক ইত্যাদি। আর একটা হচ্ছে পার্ট-২ (ভ্রমণপর্ব) । এখানে থাকবে যাতায়াত, বর্ডার ইমিগ্রেশন, হোটেল, খাবার, দর্শনীয় স্থান, শপিং, ইন্টারনেট ইত্যাদি। আর সব ভাগেই খরচের আইডিয়া দেয়ার চেষ্টা করব আপনাদের সুবিধার্থে।

১ পার্ট-১ (পূর্বপ্রস্তুতি)
আপনি মেঘালয় ভ্রমণ করবেন বলে ঠিক করেছেন। এখন আপনাকে মেঘালয়ের জন্য রওনা হওয়ার আগে কিছু কিছু জিনিস নিশ্চিত করতে হবে। চলুন জেনে নিই এই ট্যুরের জন্য কি কি লাগবে। আর এগুলো শুধু মেঘালয় ভ্রমণ নয় মোটামুটি সব দেশে ভ্রমণের জন্যই প্রযোজ্য

পাসপোর্ট ও ভিসা
ভ্রমণ কর
টাকা/ডলার
ভ্রমনের উপযুক্ত সময়
ভ্রমণসঙ্গী
পোষাক
অন্যান্য
১.১ পাসপোর্ট ও ভিসা
বিদেশ ভ্রমনের জন্য আপনার একটি পাসপোর্ট ও সংশ্লিষ্ট দেশের ভিসা থাকা আবশ্যক। তাই আপনার যদি পাসপোর্ট না থাকে তাহলে পাসপোর্ট করে নিন। পাসপোর্ট করতে পড়ুন পাসপোর্ট করার নিয়ম। আর ইন্ডিয়ান ভিসা কিভাবে পাবেন তার বিস্তারিত দেখুন আমার এই ব্লগে ভারতীয় ভিসা আবেদনের বিস্তারিত নিয়ম

শিলং/মেঘালয় সিলেট দিয়ে যেতে চাইলে ভিসা এপ্লিকেশনের পোর্ট অব এন্ট্রি-এক্সিট অবশ্যই ‘BY ROAD DAWKI’ সিলেক্ট করবেন।

১.২ ভ্রমণ কর/ট্রাভেল ট্যাক্স
বাংলাদেশ থেকে বিদেশ ভ্রমণ করলে সরকারকে ভ্রমণ কর বা ট্রাভেল ট্যাক্স দিতে হয়। স্থলপথে ভ্রমণ করের পরিমাণ ৫০০ টাকা যা আগে থেকেই বা বর্ডারে সোনালি ব্যাংকের বুথে জমা দিতে হয়। আমার মতে বর্ডারে সময় ও ঝামেলা এড়াতে যাত্রা শুরুর আগেই ভ্রমণ কর দিয়ে দেয়া উচিৎ। ডাউকিতে ভ্রমণ কর নেয়ার কোন সিস্টেম নেই। এখানে আগে কর দিয়ে না গেলে ঝামেলা হয় আর শেষ ব্যবস্থা হিসেবে ১০০-৩০০ টাকা বেশি দিলে ওরা ব্যাবস্থা করে দেয়। ভ্রমণ কর সম্পর্কের আরো বিস্তারিত জানতে পড়ুন

ভ্রমণ কর বা ট্রাভেল ট্যাক্স কি ও কোথায়, কিভাবে দিব?

১.৩ টাকা/ডলার
টাকা! ঘুরতে গেলে টাকা তো লাগবেই তা তো সবারই জানা। টাকা না লাগলে কতই না ভাল হত তাইনা? সব দেশ ঘুরতে পারতাম। 

আপনার কত খরচ হতে পারে সেই হিসেবে টাকার বিনিময়ে ডলার এনডোর্স করে নিতে হবে। অথবা ডাউকি থেকে টাকাও রুপি করে নেয়া যায়। আর ডলার নিলে ডাউকি বাজারে খুব কম রেট দেয়। ডলার ভাংগাতে পারবেন শিলং এ স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়া অথবা পুলিশ বাজারের মানি এক্সচেঞ্জ থেকে। সবাই একই রকম রেট দেয়। ডলার এক্সচেঞ্জ করলে রশীদ যত্ন করে রাখুন। অনেক সময় ইমিগ্রেশনে দেখতে চাইতে পারে।

স্টার ভয়েস ২৪
স্টার ভয়েস ২৪
এই বিভাগের আরো খবর