রোববার   ২৪ অক্টোবর ২০২১   কার্তিক ৯ ১৪২৮   ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

সেরা হয়েই ফিরছেন সাকিব

প্রকাশিত: ৫ নভেম্বর ২০২০  

ক্রিকেট খেলার সঙ্গে মনস্তত্ত্বের সম্পর্ক খুব বেশি। সাকিব আল হাসান তাই এক বছরের নিষেধাজ্ঞা পেরিয়ে যুক্তরাষ্ট্র থেকে আজ গভীর রাতে যখন দেশে পা রাখবেন তখন তার খুব ফুরফুরে মেজাজে থাকার কথা। গতকাল ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা আইসিসি পাকিস্তান-জিম্বাবুয়ে সিরিজের পর ওয়ানডের বিশ্ব র‌্যাংকিং হালনাগাদ করেছে। এবং বাংলাদেশের ইতিহাসের সেরা অলরাউন্ডার সাকিব এক বছরের বিরতির পর র‌্যাংকিংয়ে ফিরেছেন বিশ্বের এক নম্বর অলরাউন্ডার হিসেবে। মাঝের সময়টাতে ২১ রেটিং পয়েন্ট কমে গেলেও বিশ্বের সব অলরাউন্ডারকে ছাপিয়ে শীর্ষে সাকিব।

আইসিসির এক বছরের নিষেধাজ্ঞা পেরিয়ে ২৯ অক্টোবর আবার খেলার অধিকার ফিরে পান সাকিব। তার সঙ্গে জুয়াড়ির তথ্য গোপন করায় এই শাস্তি জুটেছিল বিশ্ব ইতিহাসের অন্যতম সেরা অলরাউন্ডার সাকিবের কপালে। এক সময় যে ক্রিকেটার ছিলেন খেলার তিন সংস্করণেই এক নম্বর অলরাউন্ডার।

গতকাল প্রকাশিত আইসিসির র‌্যাংকিংয়ে ৩৭৩ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে ওয়ানডের সেরা অলরাউন্ডারের জায়গায় ফিরে এসেছেন সাকিব। ৩৩ বছর বয়সী এই খেলোয়াড়ের নাম মুছে গেলে বেন স্টোকস উঠে গিয়েছিলেন এক নম্বরে। তবে যখন ফিরলেন তখন আফগানিস্তানের মোহাম্মদ নবীকে ব্যাপক ব্যবধানে হটিয়ে উদ্ধার করলেন হারানো সিংহাসন। সাকিবের চেয়ে ৭২ রেটিং পয়েন্টে পিছিয়ে নবী। তার মানে তার পয়েন্ট ৩০১। ইংলিশ স্টোকস এখন চার নম্বরে। তিন নম্বরে আছেন আরেক ইংলিশ ক্রিস ওকস। ৫-এ উঠে আসা পাকিস্তানের ইমাদ ওয়াসিমের পর সেরা দশের নামগুলো যথাক্রমে কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম (নিউজিল্যান্ড), রশিদ খান (আফগানিস্তান), মিচেল স্যান্টনার (নিউজিল্যান্ড), রবিন্দ্র জাদেজা (২৪৬), ও শন উইলিয়ামস (জিম্বাবুয়ে)।

২০১৯ সালের ৫ নভেম্বরের পর ওয়ানডে র‌্যাংকিং থেকে সাকিবের নাম মুছে গিয়েছিল। তখন পর্যন্ত ৩৯৪ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে সাকিব ছিলেন ১ নম্বরে। ৩১৯ নিয়ে স্টোকস উঠে এসেছিলেন এক নম্বরে। তখন ব্যাটিংয়ে ২৩ ও বোলিংয়ে ২৭ নম্বরে ছিলেন সাকিব। আর ওয়ানডে বিশ্ব র‌্যাংকিংয়ে ব্যাটিংয়ে তিনি এখন স্টিভ স্মিথ ও তামিম ইকবালের সঙ্গে ২১ নম্বরে। বোলিংয়ে তার অবস্থান ২৮। তার মানে দীর্ঘসময় নিষিদ্ধ থাকার পরও ব্যাটিংয়ের র‌্যাংকিংয়ে দ্ ুধাপ উন্নতি হয়েছে তার।

এটা ঠিক যে সাকিব আল হাসান নিষিদ্ধ হওয়ার পর খুব বেশিদিন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট চলেনি। করোনাভাইরাসের কারণে এই বছরের মার্চ থেকে সবাই ঘরে বন্দি হয়ে যায়। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটও আর চলছিল না। ইংল্যান্ড বায়ো-বাবল পরিস্থিতি তৈরি করে ক্রিকেট ফেরায়। কিন্তু কভিড-১৯ এ দুনিয়া আক্রান্ত হওয়ার পর সব দল এখনো আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলার সুযোগ পায়নি। যেমন সুযোগ পায়নি বাংলাদেশ।

নভেম্বারের শেষ সপ্তাহে শুরু হওয়ার কথা বঙ্গবন্ধু কাপ টি-টোয়েন্টি

টুর্নামেন্ট। ৫ দলের ওই টুর্নামেন্টে কোনো একটির নেতা হিসেবে দেখা যাবে সাকিবকে। মাকে নিয়ে আজ দেশে ফিরে কভিড-১৯ টেস্ট করিয়ে মিরপুরের মাঠে ফেরার কথা সাকিবের। অন্যদের মতো তাকেও দিতে হবে ফিটনেস টেস্ট।

ওয়ানডের বিশ্ব র‌্যাংকিংয়ের তো মীমাংসা হলো। বাকি দুই সংস্করণের? ২০১৯ সালের ১৬ নভেম্বর তার নাম মুছে যায় টেস্টের অলরাউন্ডার র‌্যাংকিং থেকে। ওই সময়ে ৩৯৭ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে সাকিব ছিলেন বিশ্ব অলরাউন্ডার র‌্যাংকিংয়ের ৩ নম্বরে। ব্যাটিংয়ে ছিলেন ৩০ আর বোলিংয়ে ২০ নম্বরে। নিষেধাজ্ঞার সময় টি-টোয়েন্টি বিশ্ব র‌্যাংকিংয়ে অলরাউন্ডার তালিকায় সাকিব ছিলেন ২ নম্বরে। রেটিং পয়েন্ট ছিল ৩৫৫। ব্যাটিংয়ে তখন ৩১ ও বোলিংয়ে ৮ নম্বরে ছিলেন। টেস্ট আর টি-টোয়েন্টির বিশ্ব র‌্যাংকিং হালনাগাদ হলেও সাকিবের অবস্থানে তেমন উল্লেখযোগ্য নড়চড় যে হবে না তা অনুমান করাই যায়।

স্টার ভয়েস ২৪
স্টার ভয়েস ২৪
এই বিভাগের আরো খবর